সোমবার, ১০ জুন ২০২৪, ০৮:৩৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
আবারো আলোচনায় সেই রবিজুল, দুজনকে তালাক দিতে ২২ গ্রাম প্রধানের চাপ : প্রতিবাদী কন্ঠ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর কলেজে হামলা ও ভাংচুরের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন : প্রতিবাদী কন্ঠ কুষ্টিয়ায় লিজকৃত রেলের জমি বিক্রি করে বাড়ী নির্মান : প্রতিবাদী কন্ঠ সরকার কোন দূর্ণীতিবাজকে পৃষ্টপোশকতা করছে না -এমপি হানিফ : প্রতিবাদী কন্ঠ কুষ্টিয়ায় ভেজাল খাদ্য প্রতিরোধে ভ্রাম্যমান ল্যাবরেটরি ভ্যানের যাত্রা শুরু : প্রতিবাদী কন্ঠ কুষ্টিয়ায় নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক জনসচেতনতামূলক কর্মশালায় মিনিকেট নামে কোনো ধান নেই : প্রতিবাদী কন্ঠ সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়ার সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত : প্রতিবাদী কন্ঠ কুষ্টিয়ায় অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত পান চাষিদের মাঝে চেক বিতরণ : প্রতিবাদী কন্ঠ কুষ্টিয়ায় ১০ দিন পর ইজিবাইক চালকের লাশ উদ্ধার : প্রতিবাদী কন্ঠ বিজয়ী প্রার্থীকে ফুলের মালা পরিয়ে ভাইরাল দৌলতপুরের ওসি রফিকুল : প্রতিবাদী কন্ঠ

কুষ্টিয়ায় ১২০ টাকায় পুলিশ কনস্টেবল পদে চাকরি পেল ৭৪ জন : প্রতিবাদী কন্ঠ

রেদওয়ানুল হক সবুজ :
  • প্রকাশিত সময় : মঙ্গলবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩
  • ১৭৩ পাঠক পড়েছে

রেদওয়ানুল হক সবুজ :
বাংলাদেশ পুলিশে ট্রেইনিং রিক্রুট কনস্টেবল (টি আরসি) পদে কুষ্টিয়য় নিয়োগ পেলো ৭৪ জন। জন প্রতি সরকারি ১২০ টাকা খরচে কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপারের কঠোর নজরদারির মাধ্যমে এই নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে বলে জানা যায়। নিয়োগ প্রাপ্তদের মধ্য ৬৯ জন ছেলে ও ৫ জন মেয়ে। মঙ্গলবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) কুষ্টিয়া পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের কনফারেন্স রুমে সাংবাদিকদের সাথে প্রেস ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার খাইরুল আলম বলেন, রাষ্ট্রীয় কাজে আজকে যাদের কনস্টেবল পদে নিয়োগ দেওয়া হলো এরা প্রতেককেই আগামী স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানে কাজ করবে বলে আমি মনে করি।
নিয়োগ প্রক্রিয়া কোন অর্থের বিনিময়ে কাউকে চাকুরী দেওয়া হলো কিনা যানতে চাইলে পুলিশ সুপার বলেন, আজ আমার হস্তক্ষেপে যারা চাকুরী পেলো এদের পরিবার বা কেউ বোলতে পারবেনা এদের কাছ থেকে কোন অর্থ নেওয়া হয়েছে, শুধু মাত্র তাদের খরচ হয়েছে ১২০ টাকা। এছাড়া তাদের কোন টাকা পয়সা লাগেনি।
ঐ সময় মিডিয়ার সামনে চাকরি পাওয়া ৭৪ জনের পরিবার কে মুখোমুখি করেন এসপি খাইরুল আলম। কিভাবে চাকরির প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে তা পরিবারের মানুষের বক্তব্যের মাধ্যমেই ফুটিয়ে তোলেন। এ কার্যক্রমের মাধ্যমেই স্বচ্ছতার বিশেষ দৃষ্টান্ত দেখান কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার। অনেকের মতে কুষ্টিয়াতে পরপর তিনবার এমন নিয়োগ দিয়ে প্রশংসিত হয়েছেন এসপি খাইরুল আলম। প্রতিটি পরিবারের আনন্দ অশ্রু এসপি হিসেবে তার বড় অর্জন বলে মনে করেন তিনি।
সদ্য কনস্টেবল পদে নিয়োগ পাওয়া মোঃ সাজ্জাদ হোসেন বলেন, আমার চাকরির জন্য শুধু মাত্র ১২০ টাকা খরচ হয়েছে এ ছাড়া আমার আর কোন টাকা পয়সা খরচ হয়নি, আমার যোগ্যতার কারনে কুষ্টিয়া পুলিশ সুপার স্যার আমাকে চাকুরী দিয়েছেন। কুষ্টিয়া সদর উপজেলার নৃসিংহপুর গ্রামের মোঃ আমিরুল ইসলাম বলেন, আমার কনিষ্ঠ ছেলে বাহারুল ইসলাম বিদুৎ এর চাকুরী এত সহজে মাত্র ১২০ টাকায় হবে তা আমার জানা ছিলনা। কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার যে এত ভালো মনের মানুষ আমি তা জানতাম না, এখন বুঝতে পারছি তিনি অনৈক বড় মনের মানুষ। আমি তার সার্বিক মঙ্গল কামনা করি।

নিউজটি শেয়ার করে আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
© All rights reserved © 2021-2022 । প্রতিবাদী কন্ঠ
Design and Developed by DONET IT
SheraWeb.Com_2580